ঘুম থেকে উঠেই কাঁধে ব্যথা, নিরাময়ে করণীয়

সারাদিনের কর্মব্যস্ততার পর রাতে শান্তির একটানা ঘুম দিলেন। হঠাৎই সকালে ঘুম থেকে উঠে কাঁধে ব্যথা অনুভব করছেন। নাড়াতে পারছেন না হাত ও কাঁধ। চিকিৎসা শাস্ত্রে এটির নাম ‘অ্যাডেসিভ ক্যাপসুলাইটিস’। এতে কাঁধের বল ও সকেট সন্ধি আক্রান্ত হয়।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সঠিক কোনো কারণ এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে এই সমস্যার জন্য ক্যাপসুল টিস্যুকে দায়ী করা যেতে পারে। যাদের বয়স ৪০ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, তাদের এই রোগের ঝুঁকি বেশি। তাছাড়া ডায়াবেটিস, থাইরয়েড ও হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভোগা রোগীদের ক্ষেত্রেও এই রোগের ঝুঁকি থাকে। তবে পুরুষদের তুলনায় নারীদের এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেশি।

যে কারণে সমস্যা হয়

বাহু ও কাঁধ সংযুক্ত অস্থি সন্ধিতে অবস্থিত হাড়, লিগামেন্ট ও টেনডনগুলো কিছুটা ক্যাপসুলের মতো এক প্রকার টিস্যু দ্বারা আবৃত থাকে। এই ক্যাপসুল ফুললে বা শক্ত হয়ে গেলে ফ্রোজেন শোল্ডার দেখা দিতে পারে। তবে ঠিক কেন এই ঘটনা ঘটে তা নিয়ে অবশ্য নিশ্চিত নন বিশেষজ্ঞরা।

এই রোগের রক্ষণ

১. দীর্ঘদিন ধরে কাঁধের জয়েন্টে ব্যথা হলে এই সমস্যা দেখা যায়।

২. প্রথম স্টেজে কাঁধে ব্যথা শুরু হয় ও হাত নাড়তে অসুবিধা দেখা হয়।

৩. কাঁধের যে পাশে সমস্যা হয়, সেদিকে কাত হয়ে শুয়ে থাকলে ওই হাত নাড়াতে কষ্ট হয়। রাতের দিকে যন্ত্রণা আরও তীব্র হয়।

৪. দ্বিতীয় ধাপে ব্যথা কমে এলেও হাত আটকে আসে। কোনো মতেই নড়াচড়া করা যায় না।

৫. তৃতীয় ধাপে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে আসে কাঁধ, ধীরে ধীরে নড়ানো যায় হাত।

যেভাবে মিলবে সমাধান

১. সুগার নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করুন।

২. কাঁধের এক্সারসাইজ ও স্ট্রেচ করার চেষ্টা করুন।

৩. চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে স্টেরয়েড জাতীয় ওষুধ ব্যবহার করতে পারেন।

৪. এই ধরনের সমস্যা থাকলে বিশেষজ্ঞরা কিছু নির্দিষ্ট ব্যায়াম করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*